স্নাতক শেষে বিয়ে: মিলবে ৫১ হাজার টাকা উপহার!

স্নাতক পাস করে যারা বিয়ে করবে তাদের জন্য ৫১ হাজার টাকা উপহার ঘোষণা করেছে ভারত সরকার। তরুণ প্রজন্মকে শিক্ষিত করে তুলতেই এই ধরনের কর্যক্রম হাতে নিয়েছে ভারত সরকার।

তারই ধারাবাহিতকায় স্নাতক পাশ করার পর যে সব মুসলিম মেয়েরা বিয়ে করবেন তাদের জন্য ‘শাদি শগুন’ নামে এক বিশেষ প্রকল্প আনতে চলেছে ভারতের মোদি সরকার।

অর্থাৎ বিয়ের সময় সেই সব মেধাবী ছাত্রীদের হাতে ৫১ হাজার টাকা উপহার তুলে দেবে সরকার। সংখ্যালঘু সম্প্রদায়কে ‘উচ্চশিক্ষায় অনুপ্রেরণা’ দিতেই এ প্রকল্প চালু হচ্ছে। যেসব ছাত্রীরা দেশটির ‘বেগম হজরত মহল স্কলারশিপ’ পেয়েছেন, তারা এই সুবিধা পাবেন বলে জানা গেছে।

তবে মোদি সরকারের এই প্রকল্প নিয়ে কিন্তু বিরোধী শিবির থেকে ক্ষোভের স্বর শোনা যাচ্ছে। সংখ্যালঘুদের জন্য কোনও অ-বিজেপি সরকার বিশেষ প্রকল্প বা কর্মসূচি নিলেই, তাতে তোষণের গন্ধ খোঁজে বিজেপি। এবার বিজেপির সরকারই সংখ্যালঘু উন্নয়নে বিশেষ কর্মসূচি নিল কেন- প্রশ্ন উঠছে নানা শিবির থেকেই।

অন্যদিকে মুসলিম ধর্মীয় নেতাদের সন্দেহ, মুসলিমদের জন্মহার নিয়ে আতঙ্কিত বিজেপিসহ উগ্র হিন্দুত্ববাদীরা। তাই মুসলিম তরুণীদের বিয়ে পিছিয়ে দিলে সে হার কমে আসতে পারে। ‘উচ্চশিক্ষায় অনুপ্রেরণা’ প্রকল্পের আড়ালে ‘এক ঢিলে দুই পাখি’ মারতে চায় মোদি সরকারের।

মাওলানা আজাদ এডুকেশন ফাউন্ডেশনের কোষাধ্যক্ষ শাকির হুসেন আনসারি জানান, মেয়েদের উচ্চশিক্ষা দেবে নাকি তার আগেই বিয়ে দিয়ে দেবে- এই ভাবনার দোলাচলে থাকে মুসলিম এবং অন্য সংখ্যালঘু সম্প্রদায় পরিবারগুলো। ফলে অনেক ক্ষেত্রেই দেখা যায় উচ্চশিক্ষায় অর্থ খরচ না করে সেই অর্থ বিয়ের জন্য জমাতে থাকেন তারা।

সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের মেধাবী ছাত্রীরা যাতে আরও বেশি দূর পড়াশোনা করতে পারে, তার জন্য ‘শাদি শগুন’ নামে এই প্রকল্প আনা হচ্ছে। পাশাপাশি, এই প্রকল্পের মাধ্যমে সেই সব পরিবারগুলোকে উত্সাহিত করা তাদের মেয়েদের উচ্চশিক্ষায় দেওয়ার জন্য। সংখ্যালঘু বিষয়ক কেন্দ্রীয় মন্ত্রী মুখতার আব্বাস নকভির কাছে এ বিষয়ে একটি প্রস্তাব পাঠায় মাওলানা আজাদ ফাউন্ডেশন। সেই প্রস্তাবে অনুমোদন দেয় সংখ্যালঘু বিষয়ক মন্ত্রণালয়।

এই প্রকল্পের আওতায় থাকবে মুসলিম, খ্রিস্টান, শিখ, বৌদ্ধ, জৈন, পার্সি সম্প্রদায়ের মেধাবী ছাত্রীরা। তবে যেসব ছাত্রীর বাবা-মায়ের আয় বছরে দুই লাখ টাকা তারা এই সুবিধা পাবেন না।

ছাত্রজীবনে আমি যে ধরনের শিক্ষকদের দেখেছি- জাফর ইকবাল

October 23, 2017

সঠিক নিয়মে পড়াশোনার ৭টি টিপস

October 23, 2017

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *