এবার ছাত্রলীগ নেত্রীকে পেটালো ছাত্রলীগ নেতা

নিজ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছাত্রলীগ সভাপতি মজিবুর রহমান অনিকের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন মিরপুর সরকারি বাঙলা কলেজ শাখা ছাত্রলীগের সহসভাপতি শুভ্রা মাহমুদ। মামলায় মজিবুর রহমান অনিকসহ আটজনের নাম ও দুজনকে অজ্ঞাত উল্লেখ করা হয়েছে। তাঁদের বিরুদ্ধে মারধর ও গয়না চুরির অভিযোগ করেছেন তিনি। আজ বুধবার ভোর সাড়ে চারটার দিকে তিনি দারুস সালাম থানায় মামলা করেন। এ মামলায় চার নম্বর আসামি সাদেক প্রধানকে পুলিশ গ্রেপ্তার করেছে।

শুভ্রার অভিযোগ, গতকাল মঙ্গলবার সকালে অনিক একই কলেজের ১০ থেকে ১৫ জন নেতা-কর্মী নিয়ে দারুস সালাম এলাকায় তাঁর ফ্ল্যাটে যান। সেখানে অনিক, সাদেক ও নিঝু তাঁকে মারধর করেন। মারধর করে তাঁকে দারুস সালাম থানায় নিয়ে যান। তাঁকে চার ঘণ্টা থানায় বসিয়ে রাখেন। পরে মুচলেকা নিয়ে তাঁকে ছেড়ে দেওয়া হয়।

পুলিশের ভাষ্য, এ ঘটনার প্রধান আসামি মজিবর রহমান অনিক পলাতক।

দারুস সালাম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সেলিম-উজ জামান বলেন, অনিককে ধরতে অভিযান চালানো হচ্ছে।

অনিক মুঠোফোনে বেলা সোয়া ১১টার দিকে প্রথম আলোকে বলেন, ‘শুভ্রা আমার কলেজের ছোট বোন। আমি কি গাঁজা খাই যে তাকে মারতে যাব? আমি চক্রান্তের শিকার। আমার নামে অভিযোগ করা হলো। ঘটনার তদন্ত করে আমাকে শোকজ করতে পারত।’

এর আগে গতকাল শুভ্রা মাহমুদ দাবি করেন, অনিকের সঙ্গে ইডেন কলেজের দ্বিতীয় বর্ষের এক ছাত্রীর প্রেমের সম্পর্ক ছিল। বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে তাঁর সঙ্গে তিনি শারীরিক সম্পর্ক করেন। এর মধ্যে অনিক আরেকটি মেয়েকে বিয়ে করেন। তখন ইডেন কলেজের ওই ছাত্রী মামলার উদ্যোগ নেন। কিন্তু মামলা করতে তাঁর বাবা-মা নিষেধ করেন। দুই দিন আগে মেয়েটি শুভ্রার বাসায় আশ্রয় নেন। গতকাল অনিকের বিরুদ্ধে মামলা করতে শুভ্রাকে নিয়ে তিনি লালবাগ থানায় যান।
লালবাগ থানার পুলিশ তাঁদের মিরপুর থানায় মামলা করতে বলে। মিরপুর থানায় অভিযোগ নিয়ে গেলে থানা থেকে অনিকের খোঁজে পুলিশ তাঁর দারুস সালাম এলাকার বাসায় যায়। সেখান থেকে ফিরে পুলিশ তাঁদের বলে, ‘এটা আমাদের এলাকায় পড়েনি। দারুস সালাম থানায় পড়েছে।’ পরে তাঁরা আদালতে গিয়ে মামলা করার প্রস্তুতি নেন। রাতেও মেয়েটি শুভ্রার বাসায় ছিলেন। খবর পেয়ে অনিক তাঁর অনুসারীদের নিয়ে শুভ্রার বাসায় গিয়ে তাঁকে মারধর করেন বলে অভিযোগ করেন শুভ্রা।

অনিক ছাত্রলীগের কাফরুল থানার নেত্রী ও মিরপুর বাঙলা কলেজের রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের অনার্সের ছাত্রী ফাতেমা তুজ জোহরা বৃষ্টির আত্মহত্যায় প্ররোচনা মামলার এজাহারভুক্ত ২ নম্বর আসামি।

ট্রাম্পের মুখে রুশ পতাকা ছুড়ে মারলেন বিক্ষোভকারী (ভিডিও)

প্রথম আলো

এবার শৌচরত নারীর ছবি তুলে বিপাকে বিজেপি নেতা

October 25, 2017

টেকনাফে রোহিঙ্গাবোঝাই নৌকাডুবি

October 25, 2017

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *