চীন চলবে ৭ জনের হাতে

চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং বুধবার দেশটির শীর্ষ শাসন পরিষদ হিসেবে পরিচিত কমিউনিস্ট পার্টির স্ট্যান্ডিং পলিটবু্যরোর সাত সদস্যের নাম ঘোষণা করেছেন। প্রেসিডেন্ট জিনপিং ও প্রধানমন্ত্রী লি কেকিয়াং পদাধিকার বলে এই কমিটির সর্বোচ্চ দুই নেতা। চীনের ‘ক্ষমতাকেন্দ্র’ নামে পরিচিত এই কমিটির বাকি পাঁচ সদস্য হলেন- ওয়াং ইয়াং, হান ঝেং, ঝাও লেজি, লি ঝাংশু এবং ওয়াং হুনিং। তাদের হাতেই আগামী পাঁচ বছর চীন পরিচালিত হবে। সংবাদসূত্র : বিবিসি, রয়টার্স

পলিটবু্যরো কমিটির সাত সদস্যের নাম ঘোষণার সময় জিনপিং স্পষ্ট করে নিজের কোনো উত্তরসূরির নাম উলেস্নখ করেননি। অথচ এর আগে পলিটবু্যরোতে প্রেসিডেন্টের উত্তরসূরি রাখার প্রথা দেখা যেত। তবে এবার সেই প্রথা ভেঙে জিনপিংয়ের কোনো উত্তরাধিকারী না রাখায় প্রশ্নের জন্ম দিয়েছে- কীভাবে তিনি শাসনকাজ পরিচালনা করতে যাচ্ছেন, সেটা নিয়ে। একে তার আরও দীর্ঘদিন ক্ষমতায় থাকার ইঙ্গিত বলে উলেস্নখ করেছে আন্ত্মর্জাতিক সংবাদমাধ্যমগুলো।

ওয়াং ইয়াংকে উপ-প্রধানমন্ত্রী থেকে নির্বাহী উপ-প্রধানমন্ত্রী করা হয়েছে। চীনের দ্বিতীয় গুরম্নত্বপূর্ণ শহর সাংহাইয়ের দলীয় সাধারণ সম্পাদক হান ঝেংকে কমিটিতে এনে চায়নিজ পিপলস কনসালটেটিভ কনফারেন্সের প্রধান করা হয়েছে। পলিটবু্যরোর জন্য যে পাঁচ জনের নাম ঘোষণা করা হয়েছে, তাদের সবার বয়স ৬০ বছরের ওপরে। আগামী পাঁচ বছর মেয়াদকালের মধ্যে তাদের অবসরে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

উলেস্নখ্য, চীনের কমিউনিস্ট পার্টির কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য সংখ্যা ২০০ জন, যারা বছরে দুইবার বৈঠকে বসেন। পলিটবু্যরো কমিটির সদস্য ২৫ জন। প্রয়োজনে তারা বৈঠক করে থাকেন। আর সর্বোচ্চ ক্ষমতাধর কমিটি হলো স্ট্যান্ডিং কমিটি। এই কমিটির সাত সদস্যই চীনের মূল চালিকাশক্তি।

এর আগে, মঙ্গলবার প্রেসিডেন্ট শি জিনপিংয়ে ‘চিন্ত্মা’কে দলীয় গঠনতন্ত্রে অন্ত্মর্ভুক্ত করার প্রস্ত্মাব সর্বসম্মতিক্রমে অনুমোদন করে চীনের কমিউনিস্ট পার্টি। আধুনিক চীনের রূপকার হিসেবে স্বীকৃত মাও সেতুংয়ের পর শি জিনপিং হলেন দ্বিতীয় ব্যক্তি, ক্ষমতাসীন থাকা অবস্থায় যার চিন্ত্মা দলীয় গঠনতন্ত্রে মতাদর্শের মর্যাদা পেল। মতাদর্শের মর্যাদা পাওয়ায় মাও-এর মতবাদ যেমন মাওবাদ হিসেবে বিবেচিত হয়, শি’র চিন্ত্মাধারাও এখন থেকে বিবেচিত হবে জিনপিং-বাদ হিসেবে। এর বিরম্নদ্ধে যেকোনো চ্যালেঞ্জ এখন থেকে কমিউনিস্ট পার্টির বিরম্নদ্ধের অবস্থান বলে বিবেচিত হবে।

গত এক সপ্তাহ ধরে রাজধানী বেইজিংয়ের ‘গ্রেট হল অব দ্য পিপলস’-এ চীনের সবচেয়ে গুরম্নত্বপূর্ণ এই রাজনৈতিক সম্মেলনে (কংগ্রেস) কমিউনিস্ট পার্টির দুই হাজারের বেশি প্রতিনিধি রম্নদ্ধদ্বার বৈঠকে অংশ নেন।

সংবাদসূত্র : বিবিসি, রয়টার্স

মেসির চেয়েও কোহলির ব্র্যান্ড–মূল্য বেশি!

October 26, 2017

ট্রাম্প গণতন্ত্রের জন্য বিপজ্জনক সরে দাঁড়ালেন দুই সিনেটর

October 26, 2017

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *