সম্পর্কোন্নয়নের সময় এসেছে পাকিস্তানের সঙ্গে : ট্রাম্প

আফগানিস্তানে জঙ্গিগোষ্ঠীগুলো কর্তৃক অপহৃত হওয়ার পাঁচ বছর পর মুক্তি পেলো উত্তর আমেরিকার একই পরিবারের ৫ সদস্য। গত বৃহস্পতিবার আফগানের সীমান্তবর্তী পাকিস্তানের কুররাম এজেন্সি থেকে তাদের উদ্ধার করে পাকিস্তান সেনাবাহিনী। পাকিস্তানের আন্তঃবাহিনী জনসংযোগ পরিদপ্তরের (আইএসপিআর) এক বিবৃতিতে বলা হয়, কানাডিয়ান নাগরিক, তার মার্কিন স্ত্রী এবং তাদের তিন সন্তানকে সন্ত্রাসীর কাছ থেকে উদ্ধার করা হয়েছে। পরে মার্কিন কর্মকর্তারাও একথা নিশ্চিত করেন। পাকিস্তান সেনাবাহিনী প্রাথমিকভাবে পরিবারটির পরিচয় প্রকাশ না করলেও তারা পাঁচজন পশ্চিমা নাগরিককে জিম্মিদশা থেকে মুক্ত করেছে এমন খবর নিশ্চিত করে। ২০১২ সালে আফগানিস্তানে জঙ্গিদের হাতে অপহৃত হয়েছিলেন কানাডিয়ান নাগরিক জশুয়া বয়েল, তার স্ত্রী মার্কিন নাগরিক কেইটল্যান কোলম্যান ও তাদের তিন সন্তান। গত বুধবার জঙ্গিরা আফগানিস্তান থেকে কুররাম এজেন্সি’র সীমান্ত দিয়ে পাকিস্তানে প্রবেশ করে। এসময় তাদের শনাক্ত করে মার্কিন গোয়েন্দারা।

তাদের তথ্যের ভিত্তিতে ওই এলাকায় অভিযান চালায় পাকিস্তান সেনাবাহিনী ও গোয়েন্দারা। মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প অপহৃত দম্পতিকে উদ্ধারের প্রশংসা করে বলেন, পাকিস্তানের সঙ্গে সম্পর্ক উন্নয়নের সময় এসেছে। এই অঞ্চলে শান্তি প্রতিষ্ঠার জন্য মার্কিন-পাকিস্তান যৌথ প্রচেষ্টার এটি একটি বড় উদাহরণ। এটি দ্বিপক্ষীয় সম্পর্কের জন্যও ইতিবাচক। ইসলামাবাদে মার্কিন দূতাবাসের মুখপাত্র বলেন, একজন মার্কিন নাগরিক ও তার পরিবারের আরো চার সদস্যকে সফলভাবে উদ্ধার করা হয়েছে। মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থা জানায়, কুররাম সীমান্ত এলাকা দিয়ে ১১ অক্টোবর তাদের পাকিস্তানে নিয়ে আসা হয়। তাদের উদ্ধার কাজ সফল হয়েছে এবং তারা সবাই সুস্থ আছেন, খুব শীঘ্রই নিজ দেশে ফিরে যাবেন তারা।

২০১২ সালে আফগানিস্তান থেকে নিজ দেশে যাওয়ার সময় দুই সন্তানসহ তাদের অপহরণ করে তালেবানরা। ২০১৬ সালের ডিসেম্বরে এক ভিডিও বার্তায় এই দম্পতি সরকারের প্রতি তাদেরকে উদ্ধারের আহŸান জানান। সন্ত্রাসবাদ দমনে পাকিস্তান খুব তৎপর নয়Ñ এই অভিযোগে দেশটির সঙ্গে সামরিক সহযোগিতা বন্ধের জন্য বেশ কিছুদিন হুমকি দিয়ে আসছিলো যুক্তরাষ্ট্র। এই উদ্ধার অভিযানের মাধ্যমে যুক্তরাষ্ট্রের সমালোচনার জবাব দেয়া গেছে বলে এখন মনে করছে পাকিস্তান। ট্রাম্প বলেন, পাকিস্তানের এ ভূমিকা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। আমি মনে করি অনেক রাষ্ট্রই যুক্তরাষ্ট্রকে ফের সম্মান করতে শুরু করবে। আমরা পাকিস্তানকে বিলিয়ন বিলিয়ন অর্থ সাহায্য করেছি সন্ত্রাস দূর করার জন্যে, কিন্তু দেশটি সে প্রচেষ্টার পাশাপাশি সন্ত্রাসীদের আশ্রয় দিয়েছে যাদের বিরুদ্ধে আমরা যুদ্ধ করছি। এখন সে অবস্থানের অবশ্যই পরিবর্তন হতে হবে। তিনি বলেন, পাকিস্তান এখন যুক্তরাষ্ট্রের ইচ্ছাকে স্বাগত জানিয়ে সম্মান করছে। দেশটিতে কিছু ঘটনা ঘটেছে যাতে আমাদের পূর্বে অসম্মান করা হয়েছে।

গার্ডিয়ান, সিএনএন, রয়টার্স।

পুতিন ও ঘনিষ্ঠদের সম্পদ ২৪০০ কোটি ডলার?

October 27, 2017

কেমন আছে বলকানের মুসলমানরা

October 27, 2017

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *