সিআইএর গোপন ষড়যন্ত্র ফাঁস

কিউবার নেতা ফিদেল কাস্ত্রোকে হত্যার ষড়যন্ত্র করেছিল যুক্তরাষ্ট্রের কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা (সিআইএ)। মার্কিন নৌবাহিনীর সাবেক কর্মকর্তা লি হার্ভে অজওয়ার্ড খুন হওয়ার আগে তাঁকে হত্যার হুমকি দিয়ে এফবিআইয়ের কার্যালয়ে ফোন করা হয়েছিল।

সদ্য প্রকাশিত যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জন এফ কেনেডি হত্যার ঘটনায় সংশ্লিষ্ট নথিতে মিলেছে চমকপ্রদ এসব তথ্য।

সিএনএন ও মিররের খবরে জানা যায়, ন্যাশনাল আর্কাইভ গতকাল বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় এসব তথ্য প্রকাশ করেছে। জাতীয় নিরাপত্তার কথা বলে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প অবশ্য সাময়িকভাবে কিছু তথ্যের প্রকাশ বন্ধ করে দিয়েছেন।

কেনেডি প্রশাসনের গোড়ার দিকে কাস্ত্রোকে হত্যার ষড়যন্ত্র করে সিআইএ। ১৯৭৫ সালে রকফেলার কমিশনের দেওয়া তথ্যে এমনটি জানানো হয়। রকফেলার কমিশনের ওই প্রতিবেদন বলছে, কেনেডির ভাই অ্যাটর্নি জেনারেল রবার্ট কেনেডি এফবিআইকে জানান, সিআইএ দেড় লাখ ডলারে এমন এক মধ্যস্থতাকারী ভাড়া করে, যার দায়িত্ব ছিল কিউবায় গিয়ে কাস্ত্রোকে হত্যা করতে বন্দুকধারী ভাড়া করা।

রকফেলার কমিশনের ওই প্রতিবেদন বলছে, পরে কাস্ত্রোকে বিষাক্ত বড়ি খাইয়ে হত্যার ষড়যন্ত্র ছিল সিআইএর।

১৯৬৩ সালের ২৪ নভেম্বরের এক নথি বলছে, এফবিআইয়ের পরিচালক জে এডগার হুভার যুক্তরাষ্ট্রের নৌবাহিনীর সাবেক কর্মকর্তা অজওয়ার্ড হত্যার আগে হুমকি আসার কথা জানিয়েছেন।

হুভার বলেন, এফবিআইয়ের ডালাস কার্যালয়ে এক ব্যক্তির ফোন এসেছিল। ওই ব্যক্তি জানিয়েছিলেন, অজওয়ার্ডকে হত্যার জন্য যে দল হয় তিনি সেখানকার সদস্য।

হুভার জানান, অজওয়ার্ডকে রক্ষার জন্য ডালাসের পুলিশপ্রধানকে তিনি চাপ দিয়েছেন। কিন্তু জ্যাক রাবি সে কথায় কান দেননি। ডালাস কার্যালয়ে এ ধরনের হুমকি দিয়ে কোনো ফোন আসার কথা অস্বীকার করেন রাবি।

হুভার বলেন, এফবিআই কিউবা ও সোভিয়েত ইউনিয়নের সঙ্গে অজওয়ার্ডের যোগসাজশের প্রমাণ পেয়েছিল।

জাতীয় নিরাপত্তা পরিষদের ১৯৬২ সালের প্রকাশিত নথি বলছে, ক্ষমতা থেকে কমিউনিস্টদের সরানোর লক্ষ্যে কিউবার বিরুদ্ধে অপারেশন মংগুজের গোপন বৈঠক হয়। যুক্তরাষ্ট্রের সেনাবাহিনীর লেফটেন্যান্ট জেনারেল ও জাতীয় নিরাপত্তা সংস্থার সাবেক পরিচালক জেনারেল (মার্শাল) কার্টার বলেন, কানাডা থেকে কিউবাগামী উড়োজাহাজের কলকবজায় অন্তর্ঘাতমূলক কোনো কৌশল করা হয়েছিল কি না, তা তদন্ত করবে সিআইএ।

অন্য দেশের হয়ে খেললে কিংবদন্তি হতেন এই ৫ ভারতীয়!

October 27, 2017

কাতালোনিয়ার স্বাধীনতা: কারিগর কে?

October 27, 2017

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *