কাতালোনিয়ার স্বাধীনতা ঘোষণা, মেসিদের কী হবে?


কাতালোনিয়া পার্লামেন্টের বাইরে অঞ্চলটির জাতীয় পতাকা হাতে অপেক্ষমাণ হাজারো স্বাধীনতাকামী মানুষ। ছবি: এএফপি

আজ স্পেন থেকে পুরোপুরি পৃথক হয়ে স্বাধীনতা ঘোষণা করেছে কাতালোনিয়া। বার্সেলোনা-ভক্তদের মধ্যে তাই প্রশ্নের জন্ম নিয়েছে, কাতালান ক্লাবটির এখন কী হবে? তারা কি লা লিগাতেই থাকবে, নাকি সেখান থেকে বেরিয়ে এসে খেলবে অন্য কোনো লিগে? চলমান লিগেই এর কোনো প্রভাব পড়বে না তো? স্প্যানিশ লিগে মাত্র ৯টি করে ম্যাচ হয়েছে। এখনো ২৯টি ম্যাচ বাকি।

শুধু লিগ নয়, চ্যাম্পিয়নস লিগের প্রশ্নটাও এর সঙ্গে জড়িত। কারণ, বার্সেলোনা চ্যাম্পিয়নস লিগে খেলছে স্পেনের শীর্ষ তিন দলের একটি হিসেবে। এখন দেশই যদি আলাদা হয় যায়, তাহলে কী হবে?

কাতালান আঞ্চলিক ফুটবল ফেডারেশনের সভাপতি আন্দ্রিউ সুবিয়েস জানিয়েছেন, স্বাধীনতা পেলেও লা লিগায় বার্সেলোনার অবস্থান কোনো হুমকির মুখে পড়বে না। স্প্যানিশ সংবাদমাধ্যম ‘মার্কা’কে তাঁর ভাষ্য, ‘কোনো কিছুই পাল্টাবে না। এটা (লা লিগা থেকে বার্সার বেরিয়ে আসা) ঘটতে পারে না।’

সুবিয়েস এর আগে স্প্যানিশ ফুটবল ফেডারেশনের (আরএফইএফ) পরিচালক পর্ষদে ছিলেন। সেই দায়িত্ব ছেড়ে তিনি এখন স্পেনের সঙ্গে স্বাধীনতা নিয়ে বিবদমান প্রদেশ কাতালোনিয়া অঞ্চলের ফুটবলপ্রধানের দায়িত্ব পালন করছেন। সুবিয়েস লা লিগায় বার্সার থেকে যাওয়া নিয়ে আশাবাদী হলেও পরিস্থিতি জটিল আকার ধারণ করতে পারে।

কাতালোনিয়া অঞ্চল স্বাধীনতা ঘোষণা করায় খুব স্বাভাবিকভাবেই প্রদেশটির ফুটবল ফেডারেশনের সঙ্গে স্প্যানিশ ফুটবল ফেডারেশনের সম্পর্ক ছিন্ন হবে। এতে সেখানকার ক্লাব বার্সেলোনা, এসপানিওল, জিরোনা, রেউসের মতো ক্লাবগুলোর স্পেনের অধীনে খেলতে সমস্যা হওয়ার কথা।

যদিও কাতালান ফুটবল ফেডারেশন সভাপতির আশা সে রকম কিছু ঘটবে না, ‘আমরা অবশ্যই আরএফইএফের সঙ্গেই চালিয়ে যেতে চাই। এটা রাজনীতি নয়, ফুটবল। যেখানে অনেক ব্যক্তিমালিকানাধীন ক্লাবের স্বার্থ জড়িত, আমাদের তা রক্ষা করতে হবে। অন্তত এই মৌসুমের জন্য তো অবশ্যই। তারপর উপযুক্ত ব্যক্তিরা মিলে সমাধানের পথ খুঁজে বের করবেন এবং প্রয়োজন হলে নতুন আইন প্রণয়ন করবেন।’

‘মার্কা’র প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, স্বাধীন কাতালান অঞ্চল মানে এই নয় যে সেখানকার ক্লাবগুলো চাইলেই অন্য কোথাও প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে পারবে। এ প্রক্রিয়াটা বেশ দীর্ঘ। তা ছাড়া স্পেন-কাতালোনিয়া বিবাদের মতো অতীতে আরও কয়েকটি ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে বলা যায়, ক্লাবগুলোকে অন্য কোথাও খেলানোর মতো আন্তর্জাতিক পরিচিতি নেই কাতালোনিয়ার। বার্সেলোনার সভাপতি হোসে মারিয়া বার্তোমেউ এর আগে জানিয়েছেন, তাঁরা লা লিগাতেই থেকে যেতে চান এবং ফুটবল-বিশ্বে স্বাধীন কাতালোনিয়ার গ্রহণযোগ্যতা নির্ভর করছে ফিফার ওপর, যারা সিদ্ধান্ত নেবে কোন ফেডারেশন অনুমতি পাওয়ার যোগ্য।


কাতালোনিয়া অঞ্চল স্বাধীনতা ঘোষণা করায় লা লিগায় বার্সার খেলা নিয়ে সংশয় থেকেই যাচ্ছে। ছবি: এএফপি

কাতালোনিয়া অঞ্চল স্বাধীনতা ঘোষণা করায় লা লিগায় বার্সার খেলা নিয়ে সংশয় থেকেই যাচ্ছে। ছবি: এএফপিবার্সেলোনা কিংবা এসপানিওলের দ্রুতই আসরটি থেকে বেরিয়ে যাওয়া কিংবা ছিটকে পড়ার কোনো সম্ভাবনা নেই বলে লেখা হচ্ছে স্প্যানিশ সংবাদমাধ্যমে। তবে স্প্যানিশ ক্রীড়া আইন অনুযায়ী, অ্যান্ডোরা ছাড়া অন্য কোনো দেশের কোনো দলের স্পেনের অভ্যন্তরীণ প্রতিযোগিতায় খেলার অনুমতি নেই। স্প্যানিশ সরকারেরও এই আইন পাল্টানোর কোনো ইচ্ছা নেই। আর তাই কাতালোনিয়া স্বাধীন হলেও অঞ্চলটির ফুটবল ফেডারেশনের অস্তিত্ব না-ও থাকতে পারে। পরিস্থিতি জটিল তো বটেই।

তবে এখন খেলার চেয়েও বড় প্রশ্ন, স্পেন ও কাতালোনিয়া বর্তমান পরিস্থিতি কীভাবে সামলাবে তার ওপর। কাতালোনিয়া স্বাধীনতা ঘোষণা করে দেওয়ার পর পাল্টা জবাব হিসেবে স্পেন এই রাজ্যের স্বায়ত্তশাসন বাতিল করেছে। এই সংঘাত রক্তক্ষয়ী কোনো সংঘর্ষে রূপ নেবে কি না, তা-ই এখন দেখার।

রোহিঙ্গা শিবির দেখতে আজ ঢাকা ছাড়ছেন খালেদা জিয়া, পথে পথে শোডাউনের প্রস্তুতি

October 28, 2017

ঐক্যের ডাক সাবেকদের

October 28, 2017

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *