নিজের বইয়ের খবর রাখেন না মুহিত

অর্থমন্ত্রীর কতগুলো বই আছে তা নিজেই জানেন না বলে স্বীকার করেছেন আবদুল মাল আবুল মুহিত।

‘আমি কখনও ভাবতে পারিনি আমার রচনাবলি প্রকাশ হতে পারে। কারণ আমার কতটি বই আছে, সেটাও জানা ছিল না। আমি বই লিখি কাজের ফাঁকে। কখনও সমসাময়িক বিষয় নিয়েও লিখি। এগুলোই পরে বই আকারে প্রকাশ পায় বলে মন্তব্য করেন তিনি।’

শনিবার বাংলা একাডেমির শামসুর রাহমান সেমিনার কক্ষে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত তার রচনাবলির পাঠ উন্মোচনকালে এ কথা বলে।

২০১৫ সাল পর্যন্ত প্রকাশিত তার সব বই নিয়ে দশ খণ্ডের ‘আবুল মাল আবদুল মুহিত রচনাবলি’ প্রকাশ করেছে উৎস প্রকাশন।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক শামসুজ্জামান খান ও অর্থনীতিবিদ কাজী খলীকুজ্জমান আহমদ।

ইমেরিটাস অধ্যাপক ড. আনিসুজ্জামানের সভাপতিত্বে এতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন উৎস প্রকাশনের প্রধান নির্বাহী মোস্তফা সেলিম।

আবুল মাল আবদুল মুহিত বলেন, চলতি বইমেলায় ইউপিএল থেকে আমার ‘বাংলার ইতিহাস (খ্রিস্টপূর্ব ৩৫০ থেকে ১৯৭৫ খ্রিস্টাব্দ) এবং চন্দ্রাবতী একাডেমি থেকে ছেলেবেলার গল্প নিয়ে ‘সোনালী দিনগুলি’ প্রকাশ হবে। সে জন্য আমি বলতে পারি, এ রচনাবলি আরও বড় হবে।

ড. আনিসুজ্জামান বলেন, বাংলা ও ইংরেজি উভয় ভাষায় লিখে তিনি সব শ্রেণীর মানুষের কাছে মুক্তিযুদ্ধকে তুলে ধরেছেন। পাশাপাশি দেশকেও তুলে ধরেছেন। সমকালীন জীবন-যাপন, অর্থনীতির পাশাপাশি অতীতের অনেক অজানা বিষয় তার লেখার মাধ্যমে উঠে এসেছে।

শামসুজ্জামান খান বলেন, আমি বিস্মিত, সারাজীবন ব্যস্ত থাকা এ মানুষ এতগুলো বই কীভাবে লিখলেন! তিনি নিজের অনন্য সাধারণ কর্মচঞ্চলতার মধ্যেই বইগুলো লিখেছেন। বাংলাদেশকে জানতে ও চিনতে হলে তার বইগুলো পড়তে হবে।

কাজী খলীকুজ্জমান বলেন, অর্থমন্ত্রী রচনাবলির ভূমিকায় লিখেছেন, তিনি লেখক নন। কিন্তু আমি মনে করি, তিনি নেশায় ও পেশায় লেখক। তার লেখার প্রকাশগুণ অসাধারণ ও সহজবোধ্য। ফলে খুব সহজেই তার লেখা পাঠককে টানে।

অর্থমন্ত্রীর রচনাবলি বইমেলায় উৎস প্রকাশনের স্টলে পাওয়া যাচ্ছে। দশ খণ্ডের রচনাবলির দাম রাখা হয়েছে ১০ হাজার টাকা।

নিজের বইয়ের খবর রাখেন না মুহিত

October 30, 2017

কেন বারবার রহস্যজনক মৃত্যুর অন্ধকারে হারিয়ে যান ভারতের পরমাণু বিজ্ঞানীরা?

October 30, 2017

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *