পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তিতে বাতিল হচ্ছে এমসিকিউ পদ্ধতি!

লাইভ প্রতিবেদক : পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষায় প্রশ্নফাঁস ও জালিয়াতি ঠেকাতে পদ্ধতিগত পরিবর্তন আনা হচ্ছে। সব বিশ্ববিদ্যালয়ে একসঙ্গে অর্থাৎ গুচ্ছ পদ্ধতি বা মেডিকেলের আলোকে পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষা নেয়ার চিন্তা করা হচ্ছে। সেই সঙ্গে এমসিকিউ পদ্ধতি বাতিল করে লিখিত পরীক্ষা নেয়ারও চিন্তা করা হচ্ছে। এসব পরিবর্তনের জন্য সুপারিশ করতে যাচ্ছে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন (ইউজিসি)। এব্যাপারে একটি খসড়াও তৈরি করা হয়েছে বলে জানা গেছে।

জানা গেছে, বর্তমান পদ্ধতি পরবর্তন করে সমন্বিত বা গুচ্ছ পদ্ধতিতে ভর্তি পরীক্ষা আয়োজনের পরামর্শ দিয়েছেন শিক্ষাবিদরা। উচ্চশিক্ষার মান উন্নয়নে প্রতি বছর ইউজিসি নিবিড় পর্যবেক্ষণ করে। সেই আলোকে তারা রাষ্ট্রপতি ও সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের নিকট সুপারিশ পেশ করে। ২০১৬ শিক্ষাবর্ষের বার্ষিক প্রতিবেদনে পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষা পরিবর্তনসহ বেশ কয়েকটি সুপারিশ করতে যাচ্ছে ইউজিসি।

ইউজিসি সূত্রে জানা গেছে, পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষায় প্রশ্নপত্র ফাঁস উচ্চশিক্ষার ক্ষেত্রে চরম ব্যাঘাত ঘটাচ্ছে। এতে উচ্চশিক্ষার মানোন্নয়ন, স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতার ক্ষেত্রে সর্বাত্মক নেতিবাচক প্রভাব ফেলছে। এ কারণে পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষা বর্তমান এমসিকিউ পদ্ধতি বাতিল করার সুপারিশ তৈরি করেছে ইউজিসি। এতে মেডিকেলের আদলে বা গুচ্ছ পদ্ধতিতে অথবা লিখিত পরীক্ষা আয়োজনের মাধ্যমে ভর্তি পরীক্ষার সুপারিশ থাকছে।

সূত্র জানিয়েছে ইতোমধ্যে সুপারিশমালার খসড়া তৈরি করা হয়েছে। ডিসেম্বরের মধ্যে আনুষ্ঠানিকভাবে রাষ্ট্রপতির হাতে তা তুলে দেয়া হবে। রাষ্ট্রপতি সুপারিশগুলো বিবেচনা করে পরবর্তীতে তা বাস্তবায়নের জন্য শিক্ষা মন্ত্রণালয়কে নির্দেশনা দেবেন।

সুপারিশমালায় বলা হয়েছে, বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষক সংকট অন্যতম প্রধান অন্তরায়। বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় এবং নতুন সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে এ সংকট চরম পর্যায়ে। তাই ইউজিসি এ সংকট নিরসনে জোর সুপারিশ করছে।

এ বিষয়ে তাদের সুপারিশ হচ্ছে- সিনিয়র শিক্ষকদের ছুটিকালীন অবকাশে সংকটপূর্ণ বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে পাঠদানে নিয়োজিত করা। দেশে উচ্চতর ডিগ্রিধারী প্রতিষ্ঠানের সংখ্যা অপ্রতুল। বিশেষ করে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ে শিক্ষক স্বল্পতা প্রধান সমস্যা। তাই বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ে উচ্চ শিক্ষা প্রদানকারী বিশেষায়িত বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার প্রস্তাব, জাতীয় গুরুত্বপূর্ণ শিক্ষক বা দেশের শিক্ষাবিদদের লেকচার বা ক্লাসের পাঠদান মাল্টিসিস্টেমে অন্যান্য বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রচারের ব্যবস্থা, ইউডিএলের (ইউনিভার্সিটি ডিজিটাল লাইব্রেরি) মাধ্যমে দেশের সকল বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে সংযোগ স্থাপন করা, ই-জার্নাল ও ই-বুক প্রযুক্তি সহজকরণের সুপারিশ থাকছে।

ইউজিসির চেয়ারম্যান প্রফেসর আবদুল মান্নান জানান, ভর্তি পরীক্ষায় নানা অনিয়ম ও জালিয়াতি বন্ধে এর পরিবর্তন প্রয়োজন। এটি নিয়ে আমরা দীর্ঘদিন ধরে কাজ করে আসছি। সকলে একমত না হওয়ায় চলতি বছর থেকে তা পরিবর্তন করা সম্ভব হয়নি। তিনি বলেন, প্রশ্নপত্র ফাঁস ও জালিয়াতি বন্ধ করতে ভর্তি পরীক্ষা পদ্ধতি পরিবর্তনে পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যরা একমত হয়েছেন। এমসিকিউ পদ্ধতি পরিবর্তন করে গুচ্ছ পদ্ধতি বা মেডিকেলের আলোকে ভর্তি পরীক্ষা আয়োজনের প্রস্তাব করা হয়েছে।

ঢাকা, ০১ নভেম্বর (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//সিএস

ঢাবি শিক্ষকদের হাতাহাতি: আন্দোলনে যেতে পারেন শিক্ষকরা!

November 4, 2017

ঢাবি শিক্ষার্থীদের উচ্চশিক্ষার সুযোগ দিচ্ছে চীনের ইউনিভার্সিটি

November 4, 2017

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *