শত্রু মিত্র

লেখক মাওলানা যুবায়ের হোসাইন

প্রকাশক মাকতাবতুস সিদ্দীক

পৃষ্ঠা সংখ্যা 288

মুদ্রিত মুল্য ৳ ৩০০.০০

ছাড়ে মুল্য ৳ ১৮০.০০

রেটিং

ক্যাটাগরি ইসলামি বই

বড়দের একটি কাফেলা। ছোটদের আরেকটি কাফেলা। উভয়পক্ষই দারুল উলূম দেওবন্দের অনুসারী এবং নিজেদের দেওবন্দী বলে পরিচয় দিয়ে থাকেন। আলোচ্য দুই কাফেলার চিন্তা-দর্শন ও কর্মকাণ্ডের মধ্যে বেশ কিছু পার্থক্য বিদ্যমান। এখন কোন পক্ষ দারুল উলূম দেওবন্দের মিত্র হবেন? কেবল মুখের দাবিই শেষ কথা নয়—কর্মকাণ্ড দিয়ে বিচার করতে হবে।
পাঠকের বুঝার সুবিধার্থে প্রতিটি শিরোনামকে তিনটি অংশে পরপর সাজানো হয়েছে—১) বড়দের কাফেলার বক্তব্য ২) ছোটদের প্রতিক্রিয়া ও বক্তব্য ৩) দারুল উলূম দেওবন্দের অবস্থান।
.
বড়দের মধ্যে কিছু কিছু ইলমী ও আমলী ক্ষেত্রে জানা-অজানা নানা কারণে কিছু গোঁজামিল পরিলক্ষিত হয়। ছোট কাফেলার একজন সদস্য হিসেবে যুবায়ের সাহেব সেগুলো নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন।
যেমন-
১) গ্রীকদেবী অপসারণের দাবি
২) শাপলা চত্বর-কওমী সনদের স্বীকৃতি
৩) মাদরাসায় জাতীয় সংগীত গাওয়া
৪) প্রচলিত ইসলামী রাজনীতি ইত্যাদি।
.
বইটি মূলত মাদরাসা সংশ্লিষ্ট ও ইসলামী নেতৃবৃন্দকে উদ্দেশ্য করে লেখা। তবে সাধারণ পাঠকদের জন্যও রয়েছে চিন্তার খোরাক। আমার মনে হয়, উল্লিখিত ব্যক্তিবর্গ বইয়ের বিষয়গুলো নিয়ে ব্যাপকভিত্তিক ভাবনাচিন্তা শুরু করলে ইতিবাচক ফলাফল পাওয়া যাবে। তবে বর্তমান প্রেক্ষাপটে এরকম স্রোতের বিপরীতে গিয়ে চিন্তা করাই কঠিন!
.
বইটি আকাবিরে দেওবন্দের উপর আরোপিত জবাব সিরিজের ২য় খণ্ড। ১ম খণ্ডকে যদি ভূমিকা বলি তাহলে এই খণ্ড হলো বিশদ বিবরণ। উদাহরণস্বরূপ, ১ম খণ্ডে হোসাইন ইবনে মানসূর হাল্লাজ প্রসঙ্গে কিছু আলোচনা আছে। এই খণ্ডে বড়দের নামে বাজারে প্রচলিত ''মানসূর হাল্লাজ চরিত'' কিতাবের পৃষ্ঠা নম্বরসহ উদ্ধৃতি উল্লেখ করে করে লেখকের পক্ষ থেকে প্রশ্ন রাখা হয়েছে। অর্থাৎ একটি বিশদ পোস্টমর্টেম—১৬ পাতা জুড়ে। বাংলাদেশের একটি বৃহৎ ইসলামী রাজনৈতিক দলের বেশ কয়েকটি কিতাব পোস্টমর্টেমের আওতায় এসেছে যেমন- ১) ভেদে মারেফত ২) জেহাদে ইসলাম বা শহীদী দর্জা ৩) ইসলাম ও আধুনিক রাষ্ট্রচিন্তা ৪) সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ ও জিহাদ।
.
বইয়ের শেষের দিকে ''ইলম-আমল'' শিরোনামে একটি অসাধারণ প্রস্তাব রাখা হয়েছে যা বর্তমান প্রেক্ষাপটে খুবই উপযোগী। প্রথমত এটি আলেম সমাজের করণীয়। পর্যায়ক্রমে তাঁদের নির্দেশনায় এটি আওয়াম পর্যন্ত পৌঁছাবে। প্রস্তাব অনুযায়ী কয়েকটি কাজ করতে হবে-
১) ইলমের তালিকা প্রস্তুত
২) আমলের তালিকা প্রস্তুত
৩) ফরয, ওয়াজিব, সুন্নাত, মুস্তাহাব, মুবাহ, মাকরূহ, হারাম, কুফরের তালিকা।
(...)
এ তালিকার সামনে খালিঘরে টিকচিহ্ন বা ক্রসচিহ্ন দিতে হবে; কোথাওবা শতকরা হার বসাতে হবে। অর্থাৎ এর মাধ্যমে ইলম ও আমলের একটা সমন্বয় করা সম্ভব হবে। বইটি আমার বেশ ভালো লেগেছে। আগ্রহীরা পড়তে পারেন।

আপনি লগড ইন নাই, দয়া করে লগ ইন করুন

ক্যাটাগরি বই