তাওহিদের মূলনীতি (প্রথম খণ্ড)

লেখক শাইখ আহমাদ মূসা জিবরীল

অনুবাদক আবদুস সাত্তার

প্রকাশক ইলমহাউজ পাবলিকেশন

পৃষ্ঠা সংখ্যা ৩৫৯

মুদ্রিত মুল্য ৳ ৩৬০.০০

ছাড়ে মুল্য ৳ ৩৬০.০০(0% Off)

রেটিং

ক্যাটাগরি বেস্ট সেলার বুকস , ঈমান ও আক্বিদা

আল্লাহ -এর ব্যাপারে জানার অর্থ তাঁর গুণাবলি ও বৈশিষ্ট্যসমূহ সম্পর্কে জানা। আল্লাহকে জানার অর্থ আপনার ওপর আল্লাহর ক্ষমতা ও কর্তৃত্ব সম্পর্কে অবগত হওয়া। মা’রিফাতুল্লাহর অর্থ হলো এটা জানা যে সৃষ্টিজগতের ওপর আল্লাহর জ্ঞান সর্বোচ্চ, সর্বশ্রেষ্ঠ। তাঁকে জানার অর্থ তাঁর সৃষ্টি সম্পর্কে অবহিত হওয়া। তাঁকে জানার অর্থ ওই ক্ষমতা সম্পর্কে অবহিত হওয়া যার মাধ্যমে এ মহাবিশ্বের অস্তিত্ব বজায় থাকে। এ সবই আল্লাহকে জানার অংশ, মা’রিফাতুল্লাহর অংশ। আল্লাহকে জানার অর্থ তাঁর পবিত্র নামসমূহ সম্পর্কে জানা, সেগুলো সম্পর্কে চিন্তা করা, সেগুলোর অর্থ অনুধাবন করা এবং সেগুলোর যা আবশ্যক করে তা মেনে চলা। যে জ্ঞান অন্তরে আল্লাহর ভয় সৃষ্টি করে তা হলো মা’রিফাতুল্লাহ। আল্লাহর সম্মান সম্পর্কে অবগত হওয়া, তাঁর প্রশংসা করা মা’রিফাতুল্লাহ।

মা’রিফাতুল্লাহর অন্য অংশটি হলো হালাল ও হারামের ব্যাপারে জানা। আল্লাহকে জানার অর্থ হলো তাঁর নির্ধারিত হালাল ও হারাম সম্পর্কে জানা। মাজমু আল ফাতাওয়ার তৃতীয় খণ্ডে, ৩৩৩ পৃষ্ঠার পর থেকে ইবনু তাইমিয়্যাহ  এ নিয়ে আলোচনা করেছেন। তিনি বলেছেন, এ জ্ঞানের ব্যাপারে মানুষের মধ্যে চারটি শ্রেণি দেখা যায়।

প্রথম শ্রেণিতে হলো ওই ব্যক্তি যে আল্লাহর ব্যাপারে এবং তাঁর নির্ধারিত হারাম ও হালালের ব্যাপারে জ্ঞান রাখে, আর এটাই শ্রেষ্ঠ শ্রেণি। আমাদের সবার উচিত এ অবস্থানে পৌঁছার চেষ্টা করা। দ্বিতীয় হলো ওই ব্যক্তি যে আল্লাহকে চেনে কিন্তু আল্লাহর আহকামের ব্যাপারে অজ্ঞ। তৃতীয় হলো ওই ব্যক্তি যে আল্লাহ -এর আহকামের ব্যাপারে জ্ঞান রাখে কিন্তু আল্লাহকে জানার ব্যাপারে, মা’রিফাতুল্লাহর ব্যাপারে অজ্ঞ। আর চতুর্থ হলো ওই ব্যক্তি যে আল্লাহকেও চেনে না, তাঁর আহকামগুলো সম্পর্কেও অজ্ঞ। সর্বোত্তম হলো প্রথম শ্রেণি, সর্বনিকৃষ্ট হলো চতুর্থ শ্রেণি।

এখন চিন্তা করে বের করুন আপনি কোন শ্রেণিতে পড়েন। নিজের দুর্বলতা ও সবলতার জায়গাগুলো নিয়ে কাজ করুন, কারণ এভাবেই আপনি মা’রিফাতুল্লাহ অর্জন করতে পারবেন।

আপনি লগড ইন নাই, দয়া করে লগ ইন করুন

এই বিষয়ে অন্যান্য বই