তাওহিদুল হাকিমিয়্যাহ

লেখক আকিল আহমাদ রাদি

সম্পাদক ড. আয়েয আল-কারনী

প্রকাশক ফিরাসাহ

পৃষ্ঠা সংখ্যা ১০৮

মুদ্রিত মুল্য ৳ ১০০.০০

ছাড়ে মুল্য ৳ ৬০.০০(-40% Off)

রেটিং

ক্যাটাগরি দাওয়াত-তাবলীগ, আলোচনা ও ওয়াজ

মুসলিম উম্মাহ বর্তমানে এমন একটা ক্রান্তিকাল অতিক্রম করছে যে, উম্মাহর ইতিহাসে এরকম সময় আর কখনোই আসেনি। একদিকে বহির্মুখী শত্রুর আক্রমণে বিপর্যস্ত, অপরদিকে অাভ্যন্তরীণ শত্রুর চক্রান্তে পর্যুদস্ত। আর বহিঃশত্রুর চেয়েও আভ্যন্তরীণ শত্রুর ষড়যন্ত্র উম্মাহর মন-মগজে বেশি প্রভাব ফেলছে। ফলে উম্মাহর বড় একটা অংশ এখন বিজয়ের স্বপ্ন দেখতেও ভুলে গেছে। পুরো বিশ্বকে পদানত করা, আল্লাহর দীন ও শারিয়াকে পুরো পৃথিবীতে প্রতিষ্ঠা করার বদলে অনেকেই এখন লক্ষ্য হিসেবে গ্রহণ করেছে “কোন মতে টিকে থাকা” আর “খাপ খাইয়ে নেওয়া”-কে।
ফলে অপরিবর্তনীয়কে পরিবর্তনের, যে বিষয়গুলো নিয়ে আপোষ করা সম্ভব না সেগুলোর ক্ষেত্রে আপোষকামিতার একটা দর্শন উম্মাহর একটি অংশের মধ্যে ছড়িয়ে পড়েছে।
.
আর আপোষকামিতা ও পরাজিত মানসিকতার এই ব্যাধির অনেক উপসর্গের মধ্যে একটি হল শারিয়াহ দিয়ে শাসনের আবশ্যকতা নিয়ে বিভ্রান্তি সৃষ্টি করা। অনেক আয়াত, হাদিস, সালাফদের বক্তব্য এবং আহলুস সুন্নাহ ওয়াল জামায়ার আয়িম্মা ও আলিমগণের বক্তব্য থেকে সন্দেহাতীতভাবে এ সত্য প্রতিষ্ঠিত যে, আল্লাহ যা নাযিল করেছেন তা দ্বারা শাসন করা আবশ্যক; ফরয। শাসন ও আনুগত্যের ব্যাপারে আল্লাহ আযযা ওয়া জাল্লার সাথে কাউকে শরিক না করা তাওহিদ ও ইমানের একটি অবিচ্ছেদ্য অংশ। এটি দীনের এমন একটি বিষয় যা সংশয়পূর্ণ কিংবা মতবিরোধ পূর্ণ (مختلف فيه) না, বরং সুপ্রতিষ্ঠিত (مجمع عليه)।
.
কিন্তু দুঃখজনকভাবে আমরা দেখি, আজ অনেকের মধ্যে এ বিষয় নিয়ে সংশয় তৈরি হয়েছে। এটি এমন একটি ফিতনা যা বহিঃশত্রুর আগ্রাসনের চেয়েও বেশি ভয়ঙ্কর। বিশেষ করে যখন উম্মাহর আরেকটি অংশ উম্মাহর বিজয়ের জন্য, উম্মাহর মর্যাদা, গর্ব ও সম্মানের দিনগুলো ফিরিয়ে আনার জন্য কাজ করছে এবং আল্লাহর ইচ্ছায় আল্লাহর শত্রুদের বিরুদ্ধে তারা বিজয়ী হচ্ছে।

এরকম সময়ে পরাজিত মানসিকতার এবং অসম্মান ও অপমানের এই মতাদর্শের মোকাবেলায় সম্মান, মর্যাদা এবং উচ্চাকাঙ্ক্ষার আকিদাকে উপস্থাপন করা এবং তার প্রতি আহ্বান করা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। এ কারণে দাওয়াহর ক্ষেত্রে যে বিষয়গুলো সর্বাধিক গুরুত্ব পাবার দাবি রাখে তার মধ্যে তাওহিদুল হাকিমিয়্যাহ অন্যতম। কারণ তাওহিদের সাথে আপোষ করে, আল্লাহর একত্বের সাথে আপোষ করে যে ইসলামের দাওয়াহ দেওয়া হয়, সেটা কখনো মুহাম্মাদুর রাসুলুল্লাহর আনীত ইসলাম না। পরিপূর্ণ তাওহিদের দাওয়াহ দেওয়ার জন্য আমরা আল্লাহ আযযা ওয়া জাল্লার কাছে দায়বদ্ধ। বিশ্বজগতের একচ্ছত্র অধিপতি যা নাযিল করেছেন, আমাদের কোন অধিকার নেই তাতে সংযোজন, বিয়োজন, সম্পাদন কিংবা পরিমার্জন করার। আমরা আদিষ্ট সত্য প্রকাশ করার জন্য। এটা মিল্লাতু ইবরাহিমের দাবি। “অতএব আপনি প্রকাশ্যে ঘোষণা করুন যা আপনাকে আদেশ করা হয় এবং মুশরিকদের পরওয়া করবেন না।" [সুরা আল-হিজর, ১৫ : ৯৪] 

তাওহিদুল হাকিমিয়্যাহর ব্যাপারে বিদ্যমান বিভিন্ন সংশয় নিরসন, শারিয়ার বক্তব্য এবং এ ব্যাপারে আহলুস সুন্নাহ ওয়াল জামায়াতের অবস্থান অত্যন্ত সাবলীলভাবে তুলে ধরা হয়েছে। বিভ্রান্তি সৃষ্টিকারীরা যেসব বিভ্রান্তি সৃষ্টি করে তার দলিলসহ জবাব এবং অতীত ও বর্তমানের হকপন্থি আলিমদের বক্তব্য খুঁজে পাবার ব্যাপারে, আল্লাহ চাইলে এ সংকলনটি ব্যাপক উপকারী হবে।

আপনি লগড ইন নাই, দয়া করে লগ ইন করুন

এই বিষয়ে অন্যান্য বই